বাড়ছে ঠান্ডা-জ্বর, চরফ্যাশন হাসপাতালে শিশু রোগীর ভিড়

0
49

এআর সোহেব চৌধুরী, চরফ্যাশন

ঠান্ডা, জ্বর, কাশি, নিউমোনিয়া ও শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত শিশু রোগীর সংখ্যা প্রদিনই বাড়ছে চরফ্যাশন উপজেলায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আউটডোরে শিশুকে চিকিৎসক দেখানোর জন্য প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত অন্তত দেড় থেকে ২শ’ শিশু রোগী নিয়ে সিরিয়ালে ভীড় করছেন রোগীর স্বজনরা।

এক মাস আগেও যেখানে ৬০ থেকে ৭০ জন রোগী আসলেও বর্তমানে আসছে অন্তত ২শ’ জন।

হাসপাতালে চিকিৎসকদের অফিস সময় শেষ হলে বন্ধ থাকে আউটডোর। এসময় এসব রোগী জরুরী বিভাগে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের কর্মরত চিকিৎসকরা রোগীদের সামলাতে পারেন না।

চরফ্যাশন হাসপাতালে আউটডোর, ইনডোর ও জরুরী বিভাগ মিলে প্রতিদিন প্রায় ৪ শতাধীক রোগী চিকিৎসা নিতে আসেন। এসব শিশু রোগির বয়স শূন্য থেকে ৬ বছর পর্যন্ত। এসব শিশু অধীক ঠান্ডা,জ্বর, নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়া আক্রান্ত হলে হাসপাতালে ভর্তি করা হচ্ছে।

চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কনসালটেন্ট (শিশু বিশেষজ্ঞ) সুমিত্রা মজুমদার বলেন, ঋতু পরিবর্তনের কারণে সিজন্যাল ফ্লুতে আক্রান্ত শিশু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বর্ষা চলে যাওয়ায় হটাৎ ঠান্ডা গরমে শিশুদের সর্দি, জ্বর, কাশি, ডায়রিয়া, নিউেমোনিয়া, ব্রঙ্কিওলাইটিস, অ্যাজমা ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে শিশু রোগী নিয়ে হাসপাতালে ছুটে আসছেন অভিভাবকরা।

তিনি আরও বলেন, ঠান্ডা জ্বরের পাশাপাশি ডায়রিয়াজনিত কারণে পানি শূন্যতা বেশি দেখা যাচ্ছে।এ ছাড়াও অন্যান্য মাসের চেয়ে বর্তমানে শিশু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

হাসপাতালের রোগতত্ব বিভাগের দায়িত্বে থাকা মেডিকেল অফিসার ডাক্তার আবদুল হাই বলেন, ১০০ সয্যা বিশিষ্ট চরফ্যাশন সরকারি হাসপাতালে আউটডোর, ইনডোর ও জরুরী বিভাগে আগত দেড় থেকে ২শ বিভিন্ন বয়সের রোগী ভর্তি করাতে হচ্ছে। এরমধ্যে প্রতিদিন ৫ থেকে ৭জন করে শিশু রোগী ভর্তি হচ্ছে। হাসপাতালে ওষুধ সাপ্লাই রয়েছে পাশাপাশি যেসকল ওষুধ হাসপাতালে সাপ্লাই নেই সেসব ওষুধ ফার্মেসী থেকে রোগীর স্বজনরা নিয়ে আসছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here